What is beam | বীম কি? – বীম কত প্রকার ও কি কি? | বীম সম্পর্কে যত কথা

beam

What is beam | বীম কি? - বীম কত প্রকার ও কি কি? | বীম সম্পর্কে যত কথা

What is beam – বীমঃ

বীম এক প্রকার অনুভূমিক কাঠামো যা এক বা একাধিক সাপোর্ট (পিলার, কলাম, দেওয়াল) এর উপর অবস্থান করে এবং এর উপরে আরোপিত লোডকে সাপোর্টে স্থানান্তরিত করে।

BEAM:- ( What is beam )

A beam is a type of horizontal structure that rests on one or more supports (pillars, columns, walls) and transfers the load imposed on it to the support.
 

প্রকারভেদঃ

সাপোর্টের ধরন অনুযায়ী বীম পাঁচ প্রকার-
 
১। সাধারণভাবে স্থাপিত বীম।
 
২। ক্যান্টিলিভার বীম।
 
৩। ঝুলন্ত বীম।
 
৪। আবদ্ধ বীম।
 
৫। ধারাবাহিক বীম।
 
প্রতিক্রিয়া বল নির্ণয় পদ্ধতি অনুসারে বীম দুই প্রকার-
 
১। স্ট্যাটিক্যালি ডিটারমিনেট বীম।
 
২। স্ট্যাটিক্যালি ইনডিটারমিনেট বীম।
 

Types: ( What is beam )

# Five types of beams according to the type of support-
1. Simply Supported Beam
2. Cantilever beam.
3. Over hanging beam.
4. Fixed Beam.
5. Continuous beam.
 
# There are two types of beams according to the reaction force determination method-
1. Statically Determinate Beam.
2. Statically indeterminate beam.
 

সাধারণভাবে স্থাপিত বীমঃ

যে সকল বীমের উভয় প্রান্ত মুক্ত অবস্থায় সাপোর্টের উপর অবস্থান করে লোড বহন করে, তাকে সাধারণভাবে স্থাপিত বীম বলে।

ক্যান্টিলিভার বীমঃ

যে সকল বীমের একপ্রান্ত দৃঢ় ভাবে আবদ্ধ এবং অন্য প্রান্ত মুক্ত অবস্থায় থেকে লোড বহন করে, তাকে ক্যান্টিলিভার বীম বলে।

ঝুলন্ত বীমঃ

যে সকল বীমের এক প্রান্ত বা উভয় প্রান্তই সাপোর্টের বাহিরে বাড়ানো অবস্থায় লোড বহন করে, তাকে ঝুলন্ত বীম বলে।

আবদ্ধ বীমঃ

যে সকল বীমের উভয় প্রান্তই সাপোর্টের সাথে দৃঢ়ভাবে আবদ্ধ থাকা অবস্থায় লোড বহন করে,  তাকে আবদ্ধ বীম বলে।

ধারাবাহিক বীমঃ

যে সকল বীম একাধিক সাপোর্টের উপর অবস্থান করে এর উপর আরোপিত লোড বহন করে, তাকে ধারাবাহিক বীম বলে।

আরোপিত লোডঃ

সকল ধরনের বীম এর উপরে ৩ ধরনের লোড আরোপিত হয়-
 
ক) কেন্দ্রিভূত লোড
 
খ) সমভাবে বিস্তৃত লোড
 
গ) অসমভাবে বিস্তৃত লোড
 

বীমের চাপ এলাকাঃ ( What is beam )

বীমের নিরপেক্ষ অক্ষ থেকে সর্ব উপরি তল পর্যন্ত এলাকাকে চাপ এলাকা বলা হয়।
 

বীমের টান এলাকাঃ ( What is beam )

বীমের নিরপেক্ষ অক্ষ থেকে সর্বনিম্ন তল পর্যন্ত এলাকাকে টান এলাকা বলে।
 
R.C.C বীম যেভাবে ব্যর্থ হতে পারেঃ
 
R.C.C বীম ৩ ভাবে ব্যর্থ হতে পারে-
 
ক) প্রসারণ স্টীলে ব্যর্থ।
 
খ) সংকোচন কংক্রিটে ব্যর্থ।
 
গ) প্রসারণ স্টীল ও সংকোচন কংক্রিট একই সাথে ব্যর্থ।
 

বীম সম্পর্কে আরও কিছু তথ্যঃ

  • বীমে টেনশন ফোর্স ফেইল করে।
  • শিয়ার ফোর্স প্রতিরোধ ও ডায়াগোনাল টেনশনকে চেক দেওয়ার জন্য বীমে স্টিরাপ ব্যবহার করা হয়।
  • মোমেন্টের মান সবসময় ঋণাত্মক হয় বলে প্রধান রড ক্যান্টিলিভার বীমের উপরিভাগে ব্যবহার করা হয়।
  • বীমে সর্বনিম্ন কভারিং ১.৫” ধরা হয়।
  • বীমের R.C.C কাজে ১%-২% হারে রড ব্যবহার করা হয়।
  • লোডের তীব্রতা হ্রাস করার জন্য বীমে এক্সট্রা টপ ব্যবহার করা হয়।

গ্রেড বিম রড বাইন্ডিং | Grade Beam Rod Binding Details Bangla

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *